fbpx

বাংলাদেশের প্রথম ভিডিও নিউজ পোর্টাল

শুক্রবার, ১৮ই জুন, ২০২১; ৪ঠা আষাঢ়, ১৪২৮; ৭ই জিলক্বদ, ১৪৪২
হোম রাজনীতি বিএনপি-জামায়াত ও আওয়ামীপন্থী আইনজীবীদের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি
বিএনপি-জামায়াত ও আওয়ামীপন্থী আইনজীবীদের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি

বিএনপি-জামায়াত ও আওয়ামীপন্থী আইনজীবীদের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি

0

বিএনপি-জামায়াত ও আওয়ামীপন্থী আইনজীবীদের মধ্যে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি পদ নিয়ে সৃষ্ট জটিলতা নিয়ে অব্যাহতভাবে পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি চলছে।

আজ দুপুরে আইনজীবী সমিতির সভাপতির কক্ষের সামনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা মুখোমুখি অবস্থান নিয়ে একই জায়গায় মিছিল-স্লোগান দেন। এ সময় বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা ‘ভোট চোর’ বলে স্লোগান দিলে আওয়ামীপন্থী আইনজীবীরাও ‘রাজাকাররা গেল কই’ বলে স্লোগান দেন।

গত ৪ মে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি হিসেবে অ্যাটর্নি জেনারেল এএম আমিন উদ্দিনের নাম ঘোষণা করে কার্যনির্বাহী কমিটির আওয়ামীপন্থী অংশ। তারা দাবি করেন, সমিতির বিশেষ সাধারণ সভায় এএম আমিন উদ্দিন কণ্ঠভোটে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির গঠনতন্ত্রের ১৬ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, এএম আমিন উদ্দিন সভাপতি পদে ২০২১-২০২২ মেয়াদের অবশিষ্ট সময়ের জন্য দায়িত্ব পালন করবেন। এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে আওয়ামীপন্থী প্যানেল থেকে নির্বাচিত সহ-সভাপতি মুহাম্মদ শফিক উল্ল্যাসহ সাতজন কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য একমত পোষণ করে স্বাক্ষর করেছেন। অপরদিকে বিএনপিপন্থী প্যানেল থেকে নির্বাচিত সমিতির সম্পাদক ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজলসহ কার্যনির্বাহী পরিষদের ছয়জন সদস্য স্বাক্ষর করেননি।

পরে সমিতির প্যাডে ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজলের পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বিশেষ সাধারণ সভায় উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কোনো আলোচনা ও সিদ্ধান্ত ব্যতিরেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত মুলতবি ঘোষণা করা হয়েছে। সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচিত সভাপতি আব্দুল মতিন খসরুর মৃত্যুতে সভাপতির পদটি শূন্য হয়।

ওই দিন সম্পাদক ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল বলেন, উনাকে সভাপতিত্ব করার কোনো কার্য বিবরণী পাস হয়নি। সিনিয়র আরেকজন সহ-সভাপতি আছেন। তখন শফিক উল্লাহ বলেন, আমি আজকের সভার সভাপতি। এই সভা থেকে ঘোষণা করছি- আজ থেকে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি এএম আমিন উদ্দিন। তখন আওয়ামীপন্থী আইনজীবীরা তাকে সমর্থন দেন।

বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা এর বিরোধিতা করতে থাকেন। তারা চিৎকার করে বলতে থাকেন- কণ্ঠভোটে নয়, নির্বাচন চাই। এক পর্যায়ে মিলনায়তনের বৈদ্যুতিক সংযোগ ও মাইকের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়। মঞ্চের ওপর ধাক্কাধাক্কির ঘটনাও ঘটে।

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry

LEAVE YOUR COMMENT

Your email address will not be published. Required fields are marked *