fbpx

বাংলাদেশের প্রথম ভিডিও নিউজ পোর্টাল

মঙ্গলবার, ২৬শে মে, ২০২০; ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭; ২রা শাওয়াল, ১৪৪১
হোম অন্যান্য ‘যারা আযহারীর সমালোচনা করে,তারাই বুকটা ফাইট্টা যায় গান করে’
‘যারা আযহারীর সমালোচনা করে,তারাই বুকটা ফাইট্টা যায় গান করে’

‘যারা আযহারীর সমালোচনা করে,তারাই বুকটা ফাইট্টা যায় গান করে’

0

বগুড়া-৭ আসনের স্বতন্ত্র এমপি রেজাউল করিম বাবলু বলেছেন, যারা মিজানুর রহমান আযহারীর সমালোচনা করে, তারাই ফিল্ডে গিয়ে টিনএজ ছেলেমেয়েদের নিয়ে বুকটা ফাইট্টা যায় গান করে তাদের উত্ত্যক্ত করে। তাদের উচ্ছৃঙ্খল করে।

তিনি বলেন, পাঙ্খাওয়ালিরা গিয়ে পাঙ্খার গান গায়। বুকটা ফাইট্টা যায়- এসব গান গেয়ে যখন যুবসমাজকে ধ্বংস করে, তখন আমরা কিছু বলি না, মাননীয় স্পিকার।

সম্প্রতি জাতীয় সংসদে দেয়া এক বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। ইতোমধ্যে তার বক্তব্যের একটি ভিডিও সামাজিকমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

রেজাউল করিম বাবলু বলেন, মূলত ধর্ষণ, খুন, রাহাজানি– এই নৈতিক চরিত্রের অবক্ষয়ের কারণ তালাশ করতে হবে।

আমার দৃষ্টিতে যতক্ষণ পর্যন্ত জাতির মধ্যে ধর্মীয় মূল্যবোধ সৃষ্টি না হবে, ততক্ষণ পর্যন্ত খুন, ধর্ষণ, রাহাজানি বন্ধ হবে না, কমবে না।

তিনি আরও বলেন, সম্প্রতি কয়েক দিন হলো আমাদের একজন ইসলামি বক্তা আযহারীকে নিয়ে কথা উঠছে। আযহারী কী রাজনীতি জানেন, তার বয়স কত। নট লেস দেন টুয়েন্টি ফাইভ ইয়ারস। সে কী রাজনীতি বোঝে, আযহারী কী রাজনীতি বোঝে যে, তাকে নিয়ে আমরা বড় বড় লোকগুলো টানাটানি করি। তাকে আরও ওপরের দিকে তুলে দিই।

এমপি বাবলু বলেন, কয়েকটা কোরআনের আয়াত নিয়ে কথা বলেন। তার পেছনে আমরা সবাই লেগেছি। মাননীয় স্পিকার, এটি আযহারীর সঙ্গে লাগা নয়, এটি করে আমাদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানা হয়েছে।

কিছু বিদেশি গোয়েন্দা, বিদেশি এজেন্ডা বাস্তবায়নকারী স্বার্থান্বেষী ব্যক্তি আমাদের এই ৯৫ শতাংশ মুসলিম দেশে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হেনে আমাদের প্রধানমন্ত্রীর সুনাম ক্ষুণ্ন করছে বলে মনে করেন এই সংসদ সদস্য।

তিনি বলেন, মাননীয় স্পিকার, আমরা এই জাতীয় সংসদের অনেক সময় অবান্তর কথা বলে থাকি। কেউ সহনীয় পর্যায়ে ঘুষ খেতে বলি, কেউ গ্রিল ধরে ১০ তলা ভবন ফেলে দেয়।

এই মুজিববর্ষে, ৫০ বছর পরও আমরা রাজাকার আর মুক্তিযোদ্ধার তালিকার ফয়সালা করতে পারিনি। সেখানে কে দুই-একটা কথা বলেন, কোরআনের আয়াত বলেন, হাদিস বলেন– আর আমরা ওঠেপড়ে লেগেছি তার পেছনে।

রেজাউল করিম বাবলু আরও বলেন, যারা ধর্মীয় বিভেদ সৃষ্টি করে অতিউৎসাহী হয়ে, সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করছে, তাদের চিহ্নিত করা হোক। আজ তারা এ বিষয়ে এত অতিউৎসাহী কেন?

এটি মুসলিম কান্ট্রি। ইসলামের সবচেয়ে বড় শত্রু ইহুদি-নাসারা। খ্রিস্টান-ইহুদিরা তাদের এজেন্ডা দিয়ে তাদের বাস্তবায়নকারী লোক ও গুপ্তচরগুলোকে দিয়ে আমাদের নৈতিক চরিত্র অধপতন করে।

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
1

LEAVE YOUR COMMENT

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।