fbpx

বাংলাদেশের প্রথম ভিডিও নিউজ পোর্টাল

রবিবার, ৫ই এপ্রিল, ২০২০; ২২শে চৈত্র, ১৪২৬; ১১ই শাবান, ১৪৪১
হোম গণমাধ্যম কচুরিপানা খাওয়া প্রসঙ্গে চেঞ্জ টিভিতে মুখ খুললেন পরিকল্পনামন্ত্রী

কচুরিপানা খাওয়া প্রসঙ্গে চেঞ্জ টিভিতে মুখ খুললেন পরিকল্পনামন্ত্রী

19
0

বিশেষ সাক্ষাৎকার:

আজ সকালে চেঞ্জ টিভি.প্রেসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে কচুরিপানা খাওয়া প্রসঙ্গে মুখ খুললেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান । তিনি বলেন, আমার বক্তব্যের  মূল বার্তাটি ছিল গবেষণা করা।

সোমবার দুপুরে মন্ত্রী বলেন, ‘গরু কচুরিপানা খেলে আমরা খেতে পারবো না কেন’। এর পরপরই গণমাধ্যমে শিরোনাম হয় তাঁর বক্তব্য এবং সমালোচনার ঝড় ওঠে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। মঙ্গলবার জাতীয় সংসদের অধিবেশনে জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রধান পৃষ্ঠপোষক রওশন এরশাদ এ নিয়ে সমালোচনা করেন।

আজ সকালে চেঞ্জ টিভিকে পরিকল্পনা মন্ত্রী তাঁর সরকারি বাসভবনে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে  কচুরিপানা খাওয়া প্রসঙ্গে বিস্তারিত ব্যাখ্যা দেন। তিনি বলেন, ‘কৃষি বিষয়ক একটি অনুষ্ঠান ছিল সেদিন। কৃষি বিজ্ঞানীরা সেখানে উপস্থিত ছিলেন। বিভিন্ন কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ছিলেন। সেখানে নানা বিষয়ে আলোচনা হচ্ছিল, মূল বিষয় ছিল গবেষণা। আমি বলেছিলাম, গবেষণার জন্য সরকার খুব জোর দিচ্ছেন। আমরা পিছিয়ে আছি এক্ষেত্রে। কাঁঠাল ও আম নিয়ে কথা হচ্ছিল। কাঁঠাল নষ্ট হয়ে যায় আকৃতি বড় হওয়ায়; কিভাবে ছোট করা যায় সে বিষয়ে কথা হচ্ছিল। বর্জ্য কিভাবে ব্যবস্থাপনা করা যায় ইত্যাদি।

আমাদের দেশে প্রচুর কচুরিপানা হয়, কিভাবে তা রিসাইকেল করা যায় সে প্রসঙ্গে আমি বলেছিলাম, কচুরিপানার ব্যবহার কি হতে পারে, কচুরিপানা তো ফুড হিসেবেও ব্যবহার হতে পারে। তখন একজন পাশ থেকে বলছিলেন, গরু কচুরিপানা খায়। তখন  বললাম, গরু কচুরিপানা খেলে আমরা খেতে পারবো না কেন? এতে টক্সিক আছে কিনা তা গবেষণা করা দরকার। মূল বার্তা ছিল গবেষণায় জোর দেওয়া। সকল বিষয়ে গবেষণা দরকার। একটি উন্নত জাতি যারা হয়েছে তারা প্রচুর গবেষণা করেছে।

ভিডিও: https://www.youtube.com/watch?v=0rfp0dl_d7g

মন্ত্রী বলেন, আমার মনে হয়, এটা নানাভাবে ব্যবহার হতে পারে। তবে খাবার আগে দেখতে হবে টক্সিক বা বিষ জাতীয় কিছু আছে কিনা।

গণমাধ্যমের শিরোনাম প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এ কথাটা কেউ ভালোভাবে শুনেন নাই বা সুস্পষ্ট করে কেউ শুনলেও অর্থটা পরিষ্কার ছিল না। এগুলো কথায় কথা হয়। মূলত বিষয় ছিল গবেষণা। গবেষণার তো কোন সীমাবদ্ধতা থাকতে পারেনা। যে কোন বিষয় নিয়েই গবেষণা হতে পারে।

উল্লেখ্য, সোমবার  দুপুরে এনইসি-২ সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে কৃষি গবেষণায় অবদান রাখায় দুজনের হাতে পুরস্কার তুলে দিয়ে তিনি বলেন, কচুরিপানা নিয়ে কিছু করার যায় কি-না। কচুরিপানার পাতা খাওয়া যায় না কোনো? গরু তো খায়। গরু খেতে পারলে আমরা খেতে পারব না কেন? এ বিষয়ে গবেষণারও তাগিদ দেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় রূপান্তর কৃষিতেই হয়েছে।

(19)

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry

LEAVE YOUR COMMENT

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।