fbpx

বাংলাদেশের প্রথম ভিডিও নিউজ পোর্টাল

বৃহস্পতিবার, ১৪ই নভেম্বর, ২০১৯; ৩০শে কার্তিক, ১৪২৬; ১৬ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১
হোম সংবাদ ২৪ ঘন্টা নদীর তলদেশে প্রথম টানেল, নির্মাণকাজের উদ্বোধন
নদীর তলদেশে প্রথম টানেল, নির্মাণকাজের উদ্বোধন

নদীর তলদেশে প্রথম টানেল, নির্মাণকাজের উদ্বোধন

6
0

কর্ণফুলী নদীর তলদেশে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল’-এর খননকাজের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এটি দেশের প্রথম টানেল। এটি আনোয়ারা উপজেলাকে বন্দরনগরীর সঙ্গে যুক্ত করবে।

প্রধানমন্ত্রী বেলা ১১টার কিছু পরে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। এ সময় সেখানে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরসহ অন্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল নয় হাজার ৮৮০ কোটি ৪০ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত হচ্ছে। যার মধ্যে বাংলাদেশ সরকারের অর্থ সহায়তা তিন হাজার ৯৬৭ কোটি ২১ লাখ টাকা এবং চীন সরকারের অর্থ সহায়তা পাঁচ হাজার ৯১৩ কোটি ১৯ লাখ টাকা।

দুটি টিউবসংবলিত মূল টানেলটির দৈর্ঘ্য ৩ দশমিক ৪ কিলোমিটার এবং টানেলের পশ্চিম ও পূর্ব প্রান্তে ৫ দশমিক ৩৫ কিলোমিটার সংযোগ সড়ক এবং ৭২৭ মিটার ওভারব্রিজ।

মহানগরীর এবং মডেল শহর দেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন, এশিয়ান হাইওয়ে নেটওয়ার্কে সংযুক্তির উদ্দেশ্যে কর্ণফুলী নদীর তলদেশ দিয়ে নির্মাণ করা হচ্ছে তরুণ প্রজন্মের স্বপ্নের টানেল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল। টানেলটি চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলাকে শহরাঞ্চলের সঙ্গে যুক্ত করবে।

প্রকল্পটির সার্বিক অগ্রগতি শতকরা ৩২ ভাগ এবং ২০২২ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকল্পের কাজ শেষ হবে। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম শহরকে বাইপাস করে সরাসরি কক্সবাজারের সঙ্গে সহজ যোগাযোগ স্থাপিত হবে। এতে চট্টগ্রাম শহরের যানজট কমাসহ যাতায়াতের সময় অনেকাংশে কমে যাবে।

এ ছাড়া এদিন প্রধানমন্ত্রী বন্দরনগরীর প্রথম এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়েও উদ্বোধন করেন। এটি নির্মিত হচ্ছে নগরীর লালখান বাজার থেকে শাহ আমানত বিমানবন্দর পর্যন্ত। এটি বাস্তবায়ন করছে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ)। এই প্রকল্পের মোট ব্যয় ধরা হয়েছে তিন হাজার ২৫০ কোটি ৮৪ লাখ টাকা। লালখান বাজার থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত সাড়ে ১৬ কিলোমিটার দীর্ঘ এ এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের নয়টি পয়েন্টে ২৪টি র‌্যাম্প থাকবে।

আজ শনিবার বেলা ১১টার দিকে বিমানে করে শাহ আমানত বিমানবন্দরে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী। পরে তিনি যান টানেল নির্মাণ এলাকায়।

(6)

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry

LEAVE YOUR COMMENT

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।